sliderউপমহাদেশশিরোনাম

ভেঙে গেল জোট, ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পথে নেপালের প্রধানমন্ত্রী

পতাকা ডেস্ক: নেপালে জোট গঠনের ৪ মাস পর ক্ষমতাসীনদের অন্যতম প্রধান শরীক দল কমিউনিস্ট ইউনিফাইড মার্কসিস্ট লেনিনবাদী (ইউএমএল) পার্টি প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কামাল দাহাল সরকারের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করে নিয়েছে। এর ফলে সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়ে সংকটের মুখোমুখি হয়েছেন তিনি। ইউএমএল পার্টি বলছে, জোটে মনোনীত তাদের ৮ জন মন্ত্রী পদত্যাগ করবেন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পার্লামেন্টের দুটি বৃহত্তম দল ইউএমএল এবং বিরোধী নেপালি কংগ্রেস পার্টি একটি নতুন জোট গঠন করবে। দাহালের নেতৃত্বাধীন সরকারের স্থলাভিষিক্ত হবে এই জোট।

ইউএমএলের শীর্ষ নেতা প্রদীপ গাওয়ালি রয়টার্সকে বলেন, নেপালের স্থিতিশীলতার জন্য নতুন এই জোট।

২০০৮ সালে নেপাল প্রজাতন্ত্র হওয়ার পর থেকে ২৩৯ বছরের রাজতন্ত্র বিলুপ্ত হয়েছে। এরপর দীর্ঘদিন ধরে দেশটি উপদলীয় লড়াই এবং রাজনীতিবিদদের অহংবোধে জর্জরিত, যা স্থিতিশীল সরকার গঠনে বাধার কারণ।

সাবেক মাওবাদী বিদ্রোহের প্রধান ৬৯ বছর বয়সী পুষ্প কামাল দাহাল ২০২২ সালে পার্লামেন্ট নির্বাচনের পর থেকে জোটে তিনবার মিত্র পরিবর্তন করেছেন।

এ অবস্থায় তার দল জানিয়েছে, দাহাল পদত্যাগ করবেন না। তবে ৩০ দিনের মধ্যে পার্লামেন্টে আস্থা ভোটের মুখোমুখি হবেন।

অপরদিকে নেপালি কংগ্রেস পার্টির মুখপাত্র প্রকাশ শরণ মাহাত বলেন, ইউএমএল প্রধান কেপি শর্মা ওলি এবং নেপালি কংগ্রেসের সভাপতি শের বাহাদুর দেউবা ২০২৭ সালের নভেম্বরে পরবর্তী নির্বাচন পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর পদ ভাগাভাগি করে নেবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button