sliderশিক্ষাশিরোনাম

১১ দিন পর সেই জবি ছাত্রীর মোবাইলফোন উদ্ধার

ছিনতাই হওয়ার ১১ দিন পর মোবাইলফোন ফিরে পেয়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষার্থী পারিশা আক্তার।
মোবাইলটি উদ্ধার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও থানা পুলিশ। অভিযান চালিয়ে ছিনতাইকারীকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে তেজগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অপূর্ব হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
এ ঘটনায় জড়িত দুই ছিনতাইকারী ও এক ক্রেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ সকালে তেজগাঁও থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান পুলিশ কর্মকর্তা রুবাইয়াত।
ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ওই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, গত ২১শে জুলাই বাসযোগে নিজ বাসায় ফিরছিলেন পরিশা আক্তার (২৫)। তেজগাঁও থানাধীন কারওয়ান রাজারস্থ ওয়াসা ভবনের সামনে আনুমানিক সন্ধ্যা ৬টার দিকে ট্রাফিক সিগন্যালে থেমে যায় বাসটি। এ সময় বাসের জানালা থেকে এক ছিনতাইকারী পারিশার হাত থেকে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি টান দিয়ে নিয়ে যায়। এসময় দ্রুত বাস থেকে নেমে এক ছিনতাইকারী ধরে ফেলেন পারিশা। পারিশার সাথে থাকা তার বন্ধুরা ঘটনাস্থল থেকে অপর একজন সন্দেহভাজন ছিনতাইকারীকে ধরে ফেলেন। তবে আটককৃত দুই ছিনতাইকারী বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত থাকলেও পারিশার মোবাইল চুরির ঘটনার সাথে জড়িত ছিল সেই প্রমাণ পাওয়া মেলেনি।
দুই ছিনতাইকারীকে আটকের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ে। পরে এ বিষয়ে প্রথমে তেজগাঁও থানায় একটি জিডি লিপিবদ্ধ করেন পারিশা আক্তার। পরবর্তীতে আইনি বিষয় ও ন্যায় বিচার নিশ্চিতে পুলিশের অনুরোধে মামলা করেন পারিশা। ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ এবং অপরাধীর বিষয়ে অভিযোগকারীর মৌখিক বর্ণনা অনুযায়ী কাজ শুরু করে তেজগাঁও থানা পুলিশ। সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয় অভিযুক্ত রাশেদুল ইসলাম (১৭) কে। প্রথমে অস্বীকার করলেও পুলিশের নিবিড় জিজ্ঞাসাবাদে এক পর্যায়ে ঘটনার সাথে নিজের ও মূল অভিযুক্ত মোঃ রিপন @ আকাশ (২৪) এর জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে সে।
ইতোমধ্যে অন্য মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া মো. রিপন @ আকাশ (২৪) কে নিবিড় জিজ্ঞাসাবাদের স্বার্থে বিজ্ঞ আদালতে রিমান্ড চাওয়া হলে বিজ্ঞ আদালত ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। জিজ্ঞাসাবাদে সে ঘটনার সাথে নিজের সংশ্লিষ্টতার কথা স্বীকার করে এবং চুরি করা মোবাইল ফোনটি মাত্র ৪,০০০ (চার হাজার) টাকার বিনিময়ে কারওয়ান বাজারের চোরাই মোবাইল ক্রেতা মোঃ শফিক (২১) এর কাছে বিক্রয় করেছে বলে জানায়। অভিযুক্তের বক্তব্য অনুযায়ী, কারওয়ান বাজারে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়। শফিককে এবং তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় চোরাই মোবাইলটি। অভিযুক্ত মো. রিপন @ আকাশের নামে বিভিন্ন থানায় ৬টি মামলা, রাশেদের বিরুদ্ধে ৪ টি মামলা এবং চোরাই মোবাইল ক্রেতা শফিকের নামে ২টি মামলা রয়েছে।

Related Articles

Back to top button