sliderস্থানীয়

মান্দায় নানা আয়োজনে ঐতিহ্যবাহী পিঠা মেলা অনুষ্ঠিত

গোলাম রাব্বানী, নওগাঁ প্রতিনিধিঃ শীত মানেই পিঠা-পুলির আয়োজন। আামাদের ব্যস্ত নাগরিক জীবনে পিঠা-পুলির স্বাদ ছড়িয়ে দিতে প্রতিবছর বিভিন্ন সংগঠন আয়োজন করে পিঠা মেলার। দেশের বিভিন্ন স্থানে এখন চলছে পিঠা মেলার আয়োজন। তেমনই নওগাঁর মান্দায় গ্রামীণ ঐতিহ্যবাহী পিঠা মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
নওগাঁর মান্দায় উপজেলায় নানা আয়োজনে গ্রামীণ ঐতিহ্যবাহী পিঠা মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) দিনব্যাপী উপজেলার কালীগ্রাম শাহ্ কৃষি যাদুঘরের সামনের আম বাগানে এ পিঠা মেলা অনুষ্ঠিত হয়।

এই পিঠা মেলা স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরাসহ স্থানীয় গ্রামীণ নারীরা নিজেদের তৈরি বিভিন্ন রকমের দেশীয় পিঠা বিক্রয় এবং প্রর্দশন করেন। হরেক রকম পিঠার পসরা নিয়ে বসেছিল পিঠা মেলা। শুরু থেকেই ভিড় করেছে তরুণ-তরুণী আর পিঠা রসিকরা। কত নামের পিঠা পুলি তার ইয়াত্তা নেই। বাহারি নামের এসব পিঠা কিনতে ভিড় করছে ক্রেতারা। বাড়িতে এতো সব পিঠা তৈরি করার ঝক্কি-ঝামেলা এড়াতেই এখান থেকে পিঠা বাসায় নিয়ে যেতে দেখা যায় অনেক কেই।

আয়োজকরা বলছেন, পিঠার সাথে পরিচয় করিয়ে দিতেই ছিল এই পিঠা মেলা। বিভিন্ন নামধারী এসব পিঠার নাম হয়ত কারো জানা নেই, তাই রান্না করে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী এসব পিঠা পরিবেশন করে সবাইকে পরিচয় করিয়ে দেয়াই মেলার উদ্দেশ। মেলায় দক্ষতা দেখিয়ে রকমারি পিঠা পরিবেশন করতে পেরে আনন্দিত অংশগ্রহণকারীরাও। দেশীয় পিঠার মধ্যে ভাপা পিঠা, পুলি পিঠা, জামাই পিঠা, শাপলা পিঠা, পাটিশাপটা পিঠা, পাকান পিঠা, কুশলি পিঠা, সতীন পিঠা উল্লেখযোগ্য।

এই পিঠা মেলা পরিদর্শন করেন মান্দা উপজেলা নিবাহী অফিসার আবু বক্কর সিদ্দিক, ও মান্দা কৃষি কর্মকতার শায়লা শারমিন।

এব্যাপারে মান্দার শাহ্ কৃষি তথ্য পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম শাহ্ জানান, গ্রামীণ ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে এই পিঠা মেলার আয়োজন করা । আগামীতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button