sliderস্থানীয়

বিদ্যালয়ের সভাপতি নির্বাচন, ম্যাজিস্ট্রেটের সামনেই পেটানো হলো ভোটারকে

মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার ঝিটকা আনন্দমোহন উচ্চবিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই অভিভাবক সদস্যকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য মমতাজ বেগমের অনুসারী ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সামনেই তাদের মারধর করেন। রোববার বিকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর নির্বাচন স্থগিত করেছেন প্রিসাইডিং কর্মকর্তা।
স্থানীয়রা জানান, বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ছিলেন মানিকগঞ্জ-২ আসনের এমপি মমতাজ বেগম এবং হরিরামপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও দুর্যোগবিষয়ক সম্পাদক দেওয়ান সাইদুর রহমান। বিদ্যালয়ের বর্তমান অ্যাডহক কমিটির সভাপতির দায়িত্বে আছেন সাইদুর রহমান। নির্বাচনের জন্য গত সোমবার চারজন অভিভাবক সদস্য নির্বাচন করা হয়। এ ছাড়া বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সদস্যসচিব, একজন দাতা সদস্য ও তিনজন শিক্ষক প্রতিনিধি মনোনীত হন। সব মিলিয়ে নয়জন ভোটারের প্রত্যক্ষ ভোটে সভাপতি নির্বাচনের কথা ছিল। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কয়েক দিন ধরে সংসদ সদস্য মমতাজ বেগমের সমর্থক ও উপজেলা চেয়ারম্যান দেওয়ান সাইদুর রহমানের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা চলে আসছিল।
বেলা তিনটার দিকে সাতজন ভোটারের উপস্থিতিতে বিদ্যালয়ের নিচতলায় সভা শুরু করেন প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মুহাম্মদ কামরুল ইসলাম। এ সময় মহিউদ্দিন মঞ্জু ও মিজানুর রহমান নামের দুজন অভিভাবক সদস্য বিদ্যালয়ের তৃতীয় তলায় ছিলেন।
জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইশতিয়াক আহমেদ তাঁদের তৃতীয় তলা থেকে নিচতলার সভাকক্ষে নিয়ে আসছিলেন। তখন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজেদুল ইসলামের নেতৃত্বে সংসদ সদস্যের অনুসারীরা দুই অভিভাবক সদস্যকে ধরে নিয়ে ব্যাপক মারধর করেন। পরে পুলিশ তাঁদের উদ্ধার করে বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে নিয়ে যান।
সংসদ সদস্য মমতাজ বেগম জানিয়েছেন, স্থানীয় নেতা-কর্মী ও নির্বাচিত সদস্যরা তাকে প্রার্থী হওয়ার প্রস্তাব দেন। তিনি নিজে সভাপতি পদে নির্বাচনের জন্য প্রার্থিতা ঘোষণা করেননি। ভোটারদের মারধরের বিষয়টি তার জানা নেই।
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেওয়ান সাইদুর রহমান বলেন, কয়েক দিন ধরে সংসদ সদস্য মমতাজ বেগমের পক্ষের লোকজন ও পুলিশ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির ভোটারদের বাড়িতে গিয়ে হুমকি-ধমকি দিচ্ছেন। নির্বাহী ম্যাজেস্ট্রেটের সামনেই দুই ভোটারকে মারধর করা হয়েছে।
মানবজমিন

Related Articles

Back to top button