sliderরাজনীতিশিরোনাম

৭টি দলের সমন্বয়ে ‘ফ্যাসিবাদবিরোধী বাম মোর্চা’র আত্মপ্রকাশ

পতাকা ডেস্ক : আত্মপ্রকাশ করলো ‘ফ্যাসিবাদবিরোধী বাম মোর্চা’ নামে রাজনৈতিক জোট। শ্রমিক, কৃষক ও জনগণের লড়াই-সংগ্রামের মাধ্যমে জনগণের সরকার ও রাষ্ট্রব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার বৈপ্লবিক লক্ষ্যে ৭টি বাম দলের সমন্বয়ে গঠিত রাজনৈতিক সংগঠনের ঐক্যবদ্ধ প্লাটফর্ম হিসেবে অত্মপ্রকাশ করেছে জোটটি।

শনিবার সকালে রাজধানীর তোপখানা রোডে আয়োজিত একটি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই বাম মোর্চার ঘোষণা দেয়া হয়। এসময় জোটটির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যসহ ১৩ দফা তুলে ধরা হয়। ‘ফ্যাসিবাদবিরোধী বাম মোর্চা’র ৭টি বামপন্থী রাজনৈতিক সংগঠন হলো- বাংলাদেশের সাম্যবাদী আন্দোলন, নয়াগণতান্ত্রিক গণমোর্চা, গণমুক্তি ইউনিয়ন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ, কমিউনিস্ট ইউনিয়ন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টি ও জাতীয় গণতান্ত্রিক গণমঞ্চ।

সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন, মোর্চার সমন্বয়ক নয়াগণতান্ত্রিক গণমোর্চার সভাপতি জাফর হোসেন। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাংলাদেশের সাম্যবাদী আন্দোলনের সমন্বয়ক শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী। এসময় উপস্থিত ছিলেন গণমুক্তি ইউনিয়নের আহ্বয়ক নাসির উদ্দীন আহম্মেদ নাসু, কমিউনিস্ট ইউনিয়নের আহ্বায়ক ইমাম গাজ্জালী, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ এর কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা মহিন উদ্দিন চৌধুরী লিটন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সভাপতি শহিদুল ইসলাম (মুকুল) ও জাতীয় গণতান্ত্রিক গণমঞ্চের সভাপতি মাসুদ খান।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী বলেন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এক সংকটজনক সন্ধিক্ষণে দেশ। দেশে আওয়ামী লীগ ফ্যাসিবাদী শাসন কায়েম করেছে। ২০১৪ সালে ভোটারবিহীন এবং ২০১৮ সালে ভোট ডাকাতির নির্বাচনে ক্ষমতায় আসা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ধনীকশ্রেণি অঢেল সম্পদের পাহাড় গড়েছে। দেশে মার্কিন-রুশ-চীন-ভারতসহ সাম্রাজ্যবাদী-সম্প্রসারণবাদী-আধিপত্যবাদী হস্তক্ষেপ গভীরতর হচ্ছে।

তিনি বলেন, বেকারত্ব, নিত্যপণ্যের দফায়-দফায় মূল্যবদ্ধি জনজীবনকে দুর্বিসহ করে তুলেছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে দফায়-দফায় গ্যাস বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি।

প্রভাব পড়ছে পরিবহন ভাড়া, বাড়িভাড়াসহ সকল নিত্যপণ্যের মূল্যের ওপর। মৌলিক অধিকার থেকে সাধারণ মানুষ বঞ্চিত হচ্ছে। মেগা প্রকল্পের নামে দেশকে বৈদেশিক ঋণের জালে জড়িয়ে মেগা দুর্নীতির সুযোগ তৈরি করছে। ভাড়াভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র বসিয়ে রেখে ক্যাপাসিটি চাার্জের নামে হাজার-হাজার কোটি টাকা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মালিকদের পকেটে চালান করে দেয়া হচ্ছে। পাচার হচ্ছে টাকা। আবারও তামাশার নির্বাচনের আয়োজন করতে যাচ্ছে সরকার ও তার সহযোগীরা। এই প্রেক্ষাপটে আওয়ামী দুঃশাসনের অবসানের লক্ষ্যে সাতটি বামপন্থী সংগঠনের অংশগ্রহণে ফ্যাসিবাদবিরোধী বাম মোর্চার যাত্রা শুরু হলো।

এসময় বিদ্যুৎ, গ্যাস ও নিত্যপণ্যের মূল্য বৃদ্ধি, সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে নজরদারী ও ফোনে আঁড়িপাতার প্রতিবাদে আগামী ২৪শে জানুয়ারি বিকাল সাড়ে ৩টায় জাতীয় প্রেসক্লাব এর সামনে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ কর্মসূচি ঘোষণা করে জোটটি।

Related Articles

Back to top button