sliderঅর্থনৈতিক সংবাদশিরোনাম

২৫৮ টন পেঁয়াজ নিয়ে দুই জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দরে

দুই সপ্তাহ ধরে চলে আসা দামের ঊর্ধ্বগতির লাগাম টানতে বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করা ২৫৮ মেট্রিক টন পেঁয়াজের চালান নিয়ে দুটি জাহাজ ভিড়েছে চট্টগ্রাম বন্দরে।
এর মধ্যে ৫৪ টন পেঁয়াজ বন্দর থেকে খালাস হয়েছে। ২০৪ টন পেঁয়াজ নিয়ে খালাসের অপেক্ষায় বহির্নোঙরে অবস্থান করছে আরও একটি জাহাজ।
আমদানিকৃত পেঁয়াজ খালাসের বিষয়টিকে বিশেষ অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বন্দর ও কাস্টমস কর্মকর্তারা।
কাস্টমস সূত্র জানায়, জাহাজ কায়েল স্টোর নামের চট্টগ্রামর এক আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের আমদানি করা দুই কন্টেইনার পেঁয়াজের চালান এসেছে ‘কোটা এনজেরিক’ নামের একটি জাহাজে। কন্টেইনার দু’টিতে পেঁয়াজের পরিমাণ ৫৪ মেট্রিক টন। মিয়ানমারে উৎপাদিত এসব পেঁয়াজ রপ্তানি করে ইন্দোসুয়েজ ট্রেজিং প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠান।
চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্রের উপ-পরিচালক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বুলবুল দেশ রূপান্তরকে জানান, কায়েল স্টোরের আমদানি করা পেঁয়াজগুলো মঙ্গলবার বন্দর থেকে খালাস হয়েছে। এছাড়া পেঁয়াজের আরও কয়েকটি চালান বন্দরের পথে রয়েছে বলে জানান তিনি।
বন্দর সূত্রে জানা যায়, সাত কন্টেইনার পেঁয়াজের চালান নিয়ে আরও একটি জাহাজ বর্তমানে বন্দরের বহির্নোঙরে রয়েছে। এতে ঢাকা ও চট্টগ্রামের দু’টি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের নামে আসা মোট ২০৪ টন পেঁয়াজ রয়েছে।
চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মো. ওমর ফারুক দেশ রূপান্তরকে বলেন, ভারত থেকে আমদানি কমে যাওয়ার কারণে সৃষ্ট সংকট কাটাতে বিভিন্ন আমদানিকারক চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে কয়েকটি দেশ থেকে পেঁয়াজের চালান আনছে। কয়েকটি চালান ইতিমধ্যে খালাস হয়েছে।
তিনি বলেন, আমদানি করা পেঁয়াজ খালাসের বিষয়টিকে বিশেষভাবে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। তাই এসব পেঁয়াজ দ্রুত খালাসের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্রের তথ্য মতে, ১২টি থেকে মোট ১ লাখ ৪৭ হাজার ৫৫৪ টন পেঁয়াজ আমদানির জন্য ইতিমধ্যে আমদানিকারকরা ৩২২টি আইপি (আমদানি অনুমতিপত্র) নিয়েছে।
যেসব দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির আইপি নেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে রয়েছে- চীন, মিশর, তুরস্ক, মিয়ানমার, নিউজিল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, মালয়েশিয়া, সাউথ আফ্রিকা, ইউক্রেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই), ভারত ও পাকিস্তান।
ভারত থেকে রপ্তানি আকস্মিকভাবে বন্ধ করে দেওয়ার কারণে চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে দেশে পেঁয়াজের দাম বাড়তে শুরু করে। ৩০ টাকা কেজি দরের পেঁয়াজের দাম উঠে ৮০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button