sliderস্থানীয়

সিংগাইর বাসস্ট্যান্ডের পাশেই ময়লার ভাগাড়, দুর্ভোগে পথচারীরা

সিরাজুল ইসলাম, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ): হেমায়েতপুর-সিংগাইর-মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের সিংগাইর বাসস্ট্যান্ডের পশ্চিম পাশে সড়ক ঘেঁষে অনেকটা জায়গাসহ দক্ষিনের খালটি পরিনত হয়েছে ময়লার ভাগাড়ে। হোটেল-রেস্টুরেন্টের উচ্ছিষ্টাংশ, প্রাইভেট ক্লিনিক হাসপাতাল ও পশুর বর্জ্য নিয়মিত ফেলায় রোদে শুকিয়ে বৃষ্টিতে পঁচে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে । এতে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন, চলাচল করতে হচ্ছে নাক বন্ধ করে । দেখার যেন কেউ নেই ।

সরেজমিন বৃহস্পতিবার (২০ জুন) জানা যায়,পৌর সদরের সিংগাইর বাসস্ট্যান্ডকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠেছে সিএনজি চালিত অটো,হ্যালো বাইক স্ট্যান্ড,গোশত বিক্রয় কেন্দ্র, হোটেল-রেস্টুরেন্ট,ক্লিনিক-হাসপাতালসহ বিভিন্ন আইটেমের শতাধিক দোকানপাট। দিন রাত অসংখ্য যানবাহন ও জনসাধারণ এ রাস্তায় চলাচল করে থাকে। বাসস্ট্যান্ড হওয়ার কারণে বিভিন্ন শ্রেনীপেশার মানুষের আনাগোনায় মুখরিত থাকে এলাকাটি । অথচ এ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় গড়ে ওঠা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বর্জ্য ও উচ্ছিষ্টাংশ ফেলা হচ্ছে পশ্চিম পাশেই মহাসড়ক ঘেঁষে । দীর্ঘদিন যাবত নিয়মিত এ ময়লা ফেলায় ভাগাড়ে পরিনত হয়েছে । আর এ জায়গায় জন্ম নেয়া বায়ুবাহিত রোগ বালাই ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন সচেতন মহল। আর এ ময়লার ভাগাড় জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকির কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে । স্থানীয়রা এটা অপসারণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সিংগাইর বাসস্ট্যান্ড দোকান মালিক সমিতির কোষাধ্যক্ষ রকিবুল হাসান বিশ্বাস বলেন, পশুর বর্জ্য,প্রাইভেট ক্লিনিক হাসপাতালের যাবতীয় ময়লা ও হোটেল-রেস্টুরেন্টের উচ্ছিষ্ট ওই স্থানে ফেলায় আশপাশের পরিবেশ দুষিত হচ্ছে । কেউ কথা শুনছে না । একটা বাজে অবস্থা বিরাজ করছে। রাস্তা দিয়ে চলাচলই দায় হয়ে পড়েছে । ওই স্থানে ময়লা ফেলা বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের নিকট জোর দাবী ও জানান তিনি ।

সিংগাইর পৌরসভার মেয়র আবু নাঈম মো. বাশার বলেন,ময়লা ফেলার জন্য আমাদের কোনো ডাম্পিং স্টেশন না থাকার কারণে আপাতত কোনো পদক্ষেপ নেয়া সম্ভব হচ্ছে না।
এ ব্যাপারে সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পলাশ কুমার বসু বলেন, ওখান থেকে ময়লা অপসারণের দ্রুত একটা ব্যবস্থা নিচ্ছি ।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button