sliderরাজনীতিশিরোনাম

সরকারের এমপিরা ঘোষণা দিয়ে লুটপাট শুরু করেছে-এবি পার্টি

পতাকা ডেস্ক: আমার বাংলাদেশ (এবি) পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম বলেছেন, বর্তমান সরকারী দলের একজন এমপি ঘোষণা দিয়েছেন গত নির্বাচনে ওনার এক কোটি ছাব্বিশ লাখ টাকা খরচ হয়েছে, উনি আগে সেটা তুলবেন। সরকারের এমপিরা যেভাবে ঘোষণা দিয়ে লুটপাট শুরু করেছে, তাতে দেশ আবার তলা বিহীন ঝুঁড়িতে পরিণত হবে বলে তিনি হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন। আজ এবি পার্টির মাসব্যাপী গণ ইফতারের ১৭ তম দিনে পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয় সংলগ্ন বিজয় একাত্তর চত্বরে এই দাবি করেন তিনি।
কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য আব্দুল হালিম নান্নু’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত গণ ইফতারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নেজামে ইসলাম পার্টির মহাসচিব আজিজুল হক ইসলামাবাদী। বক্তব্য রাখেন এবি পার্টির যুগ্ম সদস্যসচিব ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ, অ্যাডভোকেট আব্দুল্লাহ আল মামুন রানা ও যুবপার্টির আহবায়ক এবিএম খালিদ হাসান সহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তাজুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশে জনসংখ্যাকে আজ অভিশাপ মনে করা হচ্ছে। অথচ সরকারের অপরিকল্পিত শিক্ষা ব্যবস্থা আর দূর্নীতিই দেশের জনসংখ্যাকে অভিশাপে পরিণত করেছে। আমাদের জনসংখ্যা আমাদের জনশক্তি, আশীর্বাদ। পৃথিবীর সকল উন্নত দেশে কর্মক্ষম জনশক্তির অভাব রয়েছে। আমরা যদি শিক্ষা ব্যবস্থা কর্মমুখী করতে পারি এই জনশক্তি দেশের জন্য অর্থের প্রধান উৎসে পরিণত হতে পারে। দেশে আজ সব কিছু দলীয় ভাবে অযোগ্যদের নিয়ন্ত্রণে দিয়ে দেয় হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক থেকে শুরু করে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি পর্যন্ত আজ দলকানারা নিয়োগ পাচ্ছে। যার ফলে দেশের মেধাবী শিক্ষার্থীরা দেশ ছেড়ে চলে যাচ্ছে। এই ভাবে একটি দেশ চলতে পারেনা। এবি পার্টি এই অবস্থার পরিবর্তন ঘটাবে ইনশাআল্লাহ। তিনি সবাইকে এবি পার্টির পতাকাতলে সমবেত হওয়ার আহবান জানান।

আজিজুল হক ইসলামাবাদী বলেন, এই সরকার মুসলিম হিসেবে দাবি করলেও তার কার্যক্রম ইহুদী নাসারার মতো। লুটপাট চালিয়ে দলের লোকজন কোটিপতি হচ্ছে কিন্তু সাধারণ মানুষের কোন খবর নাই। এবি পার্টি আজ গণ ইফতারের যে কাজ করছে এটাই ইসলামের গুরুত্বপূর্ণ কাজ। তিনি এবি পার্টির নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান।
তিনি বলেন, আল্লাহ তায়ালা এবি পার্টিকে দেশবাসীর সেবা করার সুযোগ দিন। এই জালিম সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে এবি পার্টির নেতৃত্বে আমাদের বিজয় দান করুন।


অ্যাডভোকেট রানা বলেন, রাষ্ট্রের দায়িত্ব ছিলো জনগণের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করা। কিন্তু দুঃখের বিষয় জনগণ নিয়ে ভাবার কেউ নাই। দ্রব্যমূল্যের ক্রমাগত ঊর্ধ্বগতির কারণে মানুষ আজ অনাহারে, অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছে।
তিনি উপস্থিত রোজাদারদের উদ্দেশ্যে বলেন, এবি পার্টি একটি নতুন রাজনৈতিক দল। আমাদের সীমিত সামর্থ্য নিয়ে প্রতিদিন আপনাদের সামনে আমরা একটু ভালো মানের খাবার দেওয়ার চেষ্টা করছি। আপনারা আমাদের সাথে থাকুন, আমরা এই দেশকে একটি কল্যানমূখী রাষ্ট্রে পরিণত করবো ইনশাআল্লাহ।

এবিএম খালিদ হাসান বলেন, আজ ১৭ রমজান। মুসলমানদের ইতিহাসে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন। এই দিনে বদর যুদ্ধে বিজয়ের মাধ্যমে আমাদের প্রিয় নবী (সাঃ) সত্যের বিজয় নিয়ে এসেছিলেন। আজকের দিনে আমাদেরও শপথ নিতে হবে সকল দুঃশাসনের অবসান ঘটিয়ে বাংলাদেশেও আমরা মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করবো, সত্যের পথে এগিয়ে যাবো ইনশাআল্লাহ।

গণ ইফতারে আরও উপস্থিত ছিলেন এবি যুবপার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আহবায়ক তোফাজ্জল হোসেন রমিজ, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মশিউর রহমান মিলু, রিপন মাহমুদ, রুনা হোসাইন, ছাত্রপক্ষের আহবায়ক মোহাম্মদ প্রিন্স, যুবনেতা মোঃ মিঠু, এবি পার্টি পল্টন থানার আহবায়ক আব্দুল কাদের মুন্সি, সদস্য সচিব রনি মোল্লা, যাত্রাবাড়ী থানা আহবায়ক সিএমএইচ আরিফ সহ কেন্দ্রীয় ও মহানগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button