sliderস্থানীয়

রানীশংকৈলে পশুর হাটে অতিরিক্ত হাসিল আদায়

মোঃ মজিবর রহমান শেখ, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার কাতিহার হাটের ইজারাদারেরা গরু-ছাগল বেচাকেনায় অতিরিক্ত খাজনা (হাসিল) আদায় করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ছাড়া আঞ্চলিক সড়কের পাশেই পশুর হাট বসায় যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এতে এই সড়কে চলাচলকারীদের ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, সরকারিভাবে রেট না মেনে অতিরিক্ত হাসিল আদায় করছে ইজারাদাররা। বাজার মনিটরিং ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এসব রোধ করার দাবি এলাকাবাসীর। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার কাতিহার হাটে সরকারি হাসিল রেট অনুসারে একটি গরু কিনলে খাজনা দিতে হবে ২০০ টাকা। কিন্তু নিয়মনীতি উপেক্ষা করে বাস্তবে ৪০০ টাকা নেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করছে ক্রেতা বিক্রেতারা। কথা হয় রানীশংকৈল উপজেলার কাতিহার হাটে বাজার করতে আসা রফিকুলের সাথে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, গত বছরে এই সময়ে এই হাটে হাসিল আদায় করা হয় ২শ’ টাকা। পরে তা বাড়িয়ে ৪শ’ টাকায় আদায় করা হচ্ছে। রশিদ বইয়ে টাকার অংকও লিখে দিতে চান না তারা। এ বিষয়ে জানতে চাইলে কেউ কথা বলতে রাজি নয়।
এ বিষয়ে হাসিল আদায়কারী কর্মীর সাথে কথা হলে তিনি বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ইজারাদারের কথায় এই রেটে আদায় করা হচ্ছে। কথা হয় হাটের ইজারাদার আহম্মদ হোসেন বিপ্লব এর সাথে, অতিরিক্ত টাকা আদায় করা হচ্ছে কেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সব খানেই তো বেশি টাকা নেওয়া হচ্ছে আমরা নিলে দোষ কি? সরকারি রেট থেকে কিভাবে বেশি নিতে পারেন প্রশ্নে রেগে গিয়ে বলেন, কি করার আছে করিসতো ভাই। হাটে গিয়ে কথা বল আমাকে বলিস না। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জীতেন্দ্র নাথ রায় বলেন, ইজারাদার বেশি টাকা নিচ্ছেন বিষয়টি জানি। ইউএনও কে জানালে তিনি বলেন, এসিল্যান্ড তো গিয়ে জরিমানা করেছে। তারা যদি আবারও বেশি টাকা নেয় তাহলে জানাবেন ব্যবস্থা নিবো। আমার ইউনিয়নের প্রায় প্রতিদিনই লোকজন আমাকে এ ব্যাপারে জানান,বেশ কয়েকবার নিউজও করা হয়েছে। কিন্তু কোন লাভ হচ্ছেনা। এ বিষয়ে রানীশংকৈল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির জানান, বেশি টাকা আদায় করছে এ বিষয়টি আমি অবগত নই। আপনি তথ্যটি দিয়েছেন ধন্যবাদ আপনাকে আমরা পরবর্তী হাটে অতিরিক্ত হাসিল আদায় করলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

Related Articles

Back to top button