sliderস্থানীয়

মির্জাপুরে রাতের আঁধারে চলে অবৈধভাবে মাটি বিক্রির মহোৎসব

মোঃ আবুসালেহ (সজীব) মির্জাপুর, টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে রাতের আঁধারে চলে অবৈধভাবে মাটি বিক্রির মহোৎসব। মির্জাপুর উপজেলায় একটি পৌরসভা ও ১৪টি ইউনিয়নের প্রায় এলাকায় নির্বিচারে ফসলি জমিসহ নদীর মাটি কেটে বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। রাতের আঁধারে স্থানীয় মাটি ব্যবসায়ী সংঘবদ্ধ চক্র কৃষকদের নামমাত্র মূল্য দিয়ে আবার অনেকের জমি থেকে জোরপূর্বক মাটি কেটে রমরমা ব্যবসা চালাচ্ছেন।

উপজেলার মহেড়া ইউনিয়নের মহেড়া, ফতেপুর ইউনিয়নের হাট ফতেপুর, জামুর্কী, পাকুল্যা, ওয়ার্শী, নাগরপাড়া, ইচাইল, আনাইলবাড়ি, গোড়াই, আজগানা, বাশতৈল, ভাওড়া, চানপুর, টাকিয়া কদমা সহ আরও অনেক জাগায়।

এছাড়া মাটি ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে জমির মাটিও গভীর করে কেটে নেওয়ার অভিযোগ করছেন স্থানীয়রা। বিভিন্ন জায়গা থেকে মাটি কেটে পাচারের এলাকার অনেক কৃষি জমি নষ্ট ও পুকুরে পরিণত হওয়াসহ আশপাশের জমি পড়েছে ভাঙনের মুখে।

ড্রাম ট্রাক মহেন্দ্রর বিরামহীন চলাচলে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পাকা সড়কসহ উপজেলার বিভিন্ন সড়ক। পাশাপাশি বিকট আওয়াজ আর ধুলাবালির কারণে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে আশপাশের জনজীবন।

এসব অসাধু মাটি ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন জাগায় ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রি করছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরেই মাটি বিক্রির মহাযজ্ঞে মেতেছেন তারা। প্রতিরাতে ভেকু দিয়ে লাখ লাখ টাকার মাটি কেটে ড্রাম ট্রাক ও মহেন্দ্র গাড়িতে করে বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করছেন। প্রকাশ্যে মাটি কেটে বিক্রির হিড়িক চললেও রহস্যজনক কারণে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, পুলিশ ও প্রশাসনের নীরবতায় ক্ষোভ বিরাজ করছে স্থানীয়দের মাঝে।

নাম বলতে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা জানান, তারা রাতের আঁধারে ড্রাম ট্রাক ও মহেন্দ্র দিয়ে লাখ লাখ টাকার মাটি বিক্রি করছে। এতে এলাকার অনেক জমি বড় গর্তসহ পুকুরে পরিণত হয়েছে। এছাড়া মাটি বহনে বেপরোয়া গতিতে বিভিন্ন কাঁচা পাকা রাস্তার উপর দিয়ে যাতায়াত করছে এসব ড্রাম ট্রাক ও মহেন্দ্র গাড়ি। ভোররাত পর্যন্ত বিকট শব্দে এসব ড্রাম ট্রাক চলাচলে নির্ঘুম রাত কাটছে মানুষের।

এব্যাপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদুর রহমান এর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, ‘কোনও অবস্থায় ফসলি জমির মাটি বিক্রি করা যাবে না। ইতিমধ্যেই কিছু অসাধু মাটি ব্যবসায়ীদের মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে। আমাদের অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে। এরপরও যারা অবৈধভাবে মাটি কেটে পাচার করছে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুতই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ রেজাউল করিম সংবাদমাধ্যমকে জানান, মাটি ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে পুলিশ-প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। যেসব জায়গায় ফসলি জমির মাটি কেটে পাচার হচ্ছে সেখানে পুলিশ পাঠিয়ে তা বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এবং অসাধু মাটি ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত মামলা দেওয়া হচ্ছে। রাতে অবৈধভাবে ড্রাম ট্রাক ও মহেন্দ্র গাড়ি দিয়ে মাটি বহন করায় তা আটক করা হয়। সেইসঙ্গে নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button