sliderরাজনীতিশিরোনাম

ভোট ডাকাতি, দুর্ভিক্ষ ও আওয়ামীলীগের ইতিহাস একসূত্রে গাঁথা-এবি পার্টি

পতাকা ডেস্ক : প্রহসনের নির্বাচন বর্জন করার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে গণসচেতনতামূলক প্রচারপত্র বিলি করেছে আমার বাংলাদেশ পার্টি ‘এবি পার্টি’। আজ বিকেল ৩ টায় রাজধানীর বিজয় নগরস্থ বিজয়-৭১ চত্বর থেকে দলের যুগ্ম আহ্বায়ক বিএম নাজমুল হক, সদস্যসচিব মজিবুর রহমান মঞ্জু, যুগ্ম সদস্যসচিব ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ, অর্থ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম এফসিএ ও শ্রমিক নেতা শাহ্ আব্দুর রহমানের নেতৃত্বে দলের নেতা-কর্মীরা পল্টন, বিজয় নগর, নয়াপল্টন, কাকরাইল, সেগুন বাগিচা সহ বিভিন্ন অঞ্চলে সর্বসাধারণের মাঝে ‘প্রহসনের নির্বাচন বর্জন করুন’ এই শিরোনামে প্রচারপত্র বিলি করেন। আগামী ৭ জানুয়ারির নির্বাচনকে একতরফা, সাজানো নাটক, ডামি নির্বাচন, ইত্যাদি নানা নামে আখ্যায়িত করে দলের নেতা-কর্মীরা এসময় বেশ কিছু ফেস্টুন প্রদর্শন ও বহন করেন।


গণসচেতনতামূলক প্রচারপত্র বিলি কর্মসূচিকালে জনসাধারণের উদ্দেশ্যে এবি পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক
বিএম নাজমুল হক বলেন, আমরা বার বার প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে বলেছি একটি একতরফা নির্বাচন থেকে সরে আসুন। কিন্তু তিনি আমাদের কথা শোনেননি, তিনি শেখ হাসিনার পদলেহন করে একটি একদলীয় নির্বাচন করার মাধ্যমে দেশকে ভয়াবহ পরিনতির দিকে ঠেলে দিয়েছেন।

সদস্যসচিব মজিবুর রহমান মন্জু বলেন, আওয়ামীলীগ এমন একটি প্রহসনের নির্বাচন আয়োজন করেছে যেখানে আজ প্রার্থীকে জুতা পেটা করা হচ্ছে। দলীয় ক্যাডাররা পাড়ায় পাড়ায় হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছে নৌকায় ভোট না দিলে ভিজিডি, ভিজিএফ কার্ড সহ সকল সরকারি সুযোগ বাতিল করা হবে। আওয়ামীলীগ পনের বছর ধরে জোর করে ক্ষমতা দখল করে রেখেছে, এই সময়ে তারা জনগণের সেবা করলে, জনগণের অধিকার হরণ না করলে আজকেতো ভয় দেখানোর দরকার হতোনা। তিনি বলেন, জনগণ বাজারে যায় আর সরকারকে অভিশাপ দেয়। আজ প্রধানমন্ত্রী দুর্ভিক্ষের কথা বলছেন, এটাতো আওয়ামীলীগের ইতিহাস।

ব্যারিস্টার ফুয়াদ বলেন, আওয়ামীলীগের জন্মই আজন্ম পাপ কারণ আওয়ামীলীগ প্রতিষ্ঠা হয়েছিলো ৪৯ সালের ২৩ জুন আর বাংলার স্বাধীনতার সুর্য পলাশীর প্রান্তরে ডুবেছিলো ১৭৫৭ সালের ২৩ জুন। আজ যেমন হাসিনা দুর্ভিক্ষের কথা বলছেন তেমনি ৭৪ সালেও আমরা আওয়ামীলীগের শাসনেই দুর্ভিক্ষ দেখেছি। আজও লুটেরারা যেমন জনগণের অধিকার হরণ করে, ব্যাংক লুটপাট করে আনন্দ উৎসবে মেতে উঠেছে তেমনি ৭৪ এর দুর্ভিক্ষের সময়ও তাদের ক্লাবে ক্লাবে আনন্দ করতে দেখা গেছে, যখন মানুষ আর কুকুর খাবার নিয়ে ডাস্টবিনে কাড়াকাড়ি করেছে। ৭ ই জানুয়ারীর নির্বাচনে যে আনন্দ আজ দেখা যাচ্ছে তা আওয়ামীলীগের শেষকৃত্যের আনন্দে পরিনত হবে ইনশাআল্লাহ।

প্রচারপত্র বিলিতে আরও অংশগ্রহণ করেন, এবি পার্টির কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন রানা, প্রচার সম্পাদক আনোয়ার সাদাত টুটুল, যুবপার্টির আহবায়ক এবিএম খালিদ হাসান, সিনিয়র সহকারী সদস্য সচিব আব্দুল বাসেত মারজান, সহকারী সদস্য সচিব শাহ আব্দুর রহমান, মেহেদী হাসান চৌধুরী পলাশ, মহানগর দক্ষিণের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল হালিম খোকন, গাজী নাসির, যুগ্ম সদস্য সচিব সফিউল বাসার, কেফায়েত হোসেন তানভীর, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সেলিম খান, আব্দুল হালিম নান্নু, আমিরুল ইসলাম নুর, আমেনা বেগম, আমানুল্লাহ খান রাসেল, মশিউর রহমান মিলু, যুবপার্টি মহানগর উত্তরের সদস্য সচিব শাহিনুর আক্তার শীলা, পল্টন থানা আহবায়ক আব্দুল কাদের মুন্সি, ছাত্রপক্ষের সহকারী সদস্য সচিব হাসিবুর রহমান খান সহ কেন্দ্রীয় ও মহানগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button