বৈধ কাগজপত্র বিহীন লেবানন প্রবাসীদের দেশে ফিরতে চলছে নাম নিবন্ধন

অবশেষে বৈধ কাগজপত্র বিহীন লেবানন প্রবাসীদের দেশে ফিরতে নাম নিবন্ধন শুরু হয়েছে। বাংলাদেশ দূতাবাসের দেয়া পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী আজ শুক্রবার বৈরুতে বিমানবন্দর রোডে ক্লাসিকো স্টিডিয়ামে প্রবাসীদের নাম নিবন্ধন শুরু হয়। এ সময় হাজার হাজার দেশে ফিরতে ইচ্ছুক প্রবাসীদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। লেবাননে প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে নাম নিবন্ধন করতে ভোর থেকে জমায়েত হয় প্রবাসীরা।
লেবাননের আইন শৃংখলা বাহিনীর কঠোর নিরাপত্তায় এসকল প্রবাসীর নাম নিবন্ধন শুরু হয়। তবে প্রবাসীদের উপচেপড়া ভিড়ে তাদেরকে সামাল দিতে হিমসিম খেতে হয় দূতাবাসের কর্মকর্তাদের। দূতাবাসের অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে লেবাননে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর আল মুস্তাহিদুর রহমানকেও প্রবাসীদের সামাল দিতে দেখা গেছে।
৪০০ মার্কিন ডলার ও ১ লাখ ৪০ হাজার লেবানিজ পাউন্ড দিয়ে দেশে ফিরতে ইচ্ছুক প্রবাসীদের নাম নিবন্ধন করতে হচ্ছে। ২৫শে ডিসেম্বর থেকে ২৮শে ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে নিবন্ধন, এরপর শুরু হবে দেশে ফেরার কার্যক্রম।
কর্ম সংকট, অর্থনৈতিক মন্দা ও ডলারের মূল্যবৃদ্ধি দেশে ফেরার মূল কারণ বলে জানান নাম নিবন্ধন করতে আসা প্রবাসীরা।
তারা বলেন, লেবাননের যে পরিস্থিতি, দিন দিন খারাপ হচ্ছে। লেবানন ঠিক হওয়ার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। এভাবে লেবাননে পরে থাকার চেয়ে কষ্ট করে দেশে ফেরা অনেক ভালো বলে জানান প্রবাসীরা।
তারা বলেন, এখানে নিজেরাই চলতে পারি না, দেশে পরিবার চালাব কি করে। তাই দেশে ফেরাই এখন মঙ্গল মনে করছেন।
উল্লেখ্য, দীর্ঘ ১ বছরের বেশি সময় ধরে লেবাননে চলছে রাজনৈতিক অস্থিরতা, যার ফলে ভেঙ্গে পড়েছে লেবাননের অর্থনীতির চাকা। সেই সঙ্গে বৈরুত পোর্টে বিষ্ফোরণ ও করোনার থাবায় অনেকটা অচল লেবানন। ধীরে ধীরে অবনতি হচ্ছে দেশটির কর্মসংস্থান। সব মিলিয়ে এর প্রভাব পড়েছে লেবাননে থাকা সকল জাতির ওপর। যার ফলে শুধু বাংলাদেশি প্রবাসীরাই নয়। লেবানন ছেড়েছে অন্যান্য দেশের প্রবাসীরাও।
সুত্র : মানবজমিন

Check Also

ফতুল্লায় কাপড়ের মার্কেটে আগুন, কয়েক কোটি টাকার মালামাল পুড়ে ছাই

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা লঞ্চ ঘাটের বিপরীতে একটি কাপড়ের মার্কেটে বুধবার সকালে ভয়াবহ আগুন লেগেছে। আগুনে পুড়ে …