sliderস্থানীয়

বেনাপোলে আরএনজির নাটকীয় চোরাই পণ্য উদ্ধার! অর্থবানিজ্যের গুঞ্জন

জাহিদ হাসান, বেনাপোল প্রতিনিধি : বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশনে রাখা ওয়াগান হতে চুরি যাওয়া ভারত হতে আমদানীকৃত ভূট্টার বস্তা উদ্ধার ঘটনায় রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। সোমবার রাতে বেনাপোল বাজারস্থ বাহাদুর রোডের ফারুক স্টোর হতে চুরি যাওয়া ৩ বস্তা ভূট্টা উদ্ধার করে রেলের নিরাপত্তা (আর এনজির) সদস্যরা। বেনাপোল বাজার ব্যবসায়ীক কমিটির সাধারণ সম্পাদক বজলুর রহমান (চেয়ারম্যান) বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বাজার কমিটির নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ ব্যবসায়ীকদের উপস্থিতিতে বেনাপোল রেলওয়ে পুলিশের অভিযানে ফারুক স্টোরে তল্লাশীকালে ৩বস্তা ভূট্টা উদ্ধায় করা হয়।
সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় পণ্য চুরির ঘটনাটি ঘটে বলে নিশ্চিত করেন ট্রেন পরিচালক মাহবুব জানান বেনাপোল স্টেশন হতে সন্ধ্যা ৬.২০ মিনিটে ২১ বগির একটি ওগেন পন্য চালান নিয়ে ইশ্বরদীর উদ্দেশ্যে রওনা হই। স্টেশন হতে ১০ কিঃ মিঃ দূরে একটি ওয়াগানের দরজা খোলা দেখতে পেয়ে আমি বেনাপোল স্টেশন মাস্টারকে জানাই। রেলওয়ে নিরাপত্তায় দ্বায়িত্বরতরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুনরায় বগিটি ছিলগালা করে দিলে আমি ট্রেন নিয়ে চলে আসি। এসময় মাটিতে আমি কিছু সংখ্যক ভুট্টা মাটিতে পড়ে থাকতে দেখেছি। অন্যদিকে স্টেশনটির নিরাপত্তা শাখার দায়িত্বরতরা চোরাই পণ্য উদ্ধার করলেও চোর চক্রকে গ্রেফতার পূর্বক ছেড়ে দেওয়ায় ঘটনায় ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। আর এনজির ইন্ধনেই কি তবে প্রায়ই স্টেশন হতে আমদানীকৃত পণ্য চুরি হচ্ছে? প্রশ্ন ওঠেছে জনমনে। এ বিষয়ে স্টেশনটির নিরাপত্তাশাখার কর্মকর্তা এ এস আই আসাদুজ্জামান রানা পণ্য উদ্ধার ঘটনাটি প্রথমে অস্বীকার করেন। রেলের আরএনজির কর্মকর্তা বড় অঙ্কের অর্থবানিজ্যে চোর চক্রের সদস্যকে ছেড়ে দিয়েছে বলে এলাকায় গুঞ্জন ছড়িয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার রাত ৭টা ৩০মিনিটের দিকে ভ্যান যোগে ভূট্টা সমেত ইমরান নামের ব্যাক্তিকে বেনাপোল স্টেশনে নিয়ে আসেন আরএনজির ৮ সদস্যের একটি দল। ঘন্টা খানিক পরে রাতেই তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। খবরের সত্যতা যাচায়ে ঐ কর্মকর্তার মুঠো ফোনে কল দিয়ে অভিযানের সিসি ফুটেজ সংরক্ষিত রয়েছে জানালে চোরাই পণ্য উদ্ধার অভিযানে থাকা রেলওয়ের নায়েক আলতাফ জানান, প্রতিষ্ঠান মালিক চোরসনাক্তের জন্য সিসি ফুটেজ পেনড্রাইভে দেওয়াসহ মোচলেকা প্রদান করায় আমরা তাকে ছেড়ে দিয়েছি। গনমাধ্যমকর্মীদের কাছে বিভ্রান্তীকর তথ্য প্রদানের কারণ জানতে চাইলে তিনি কোন সদউত্তর দিতে পারেনি। বেনাপোল রেল স্টেশন সূত্র জানান, আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান আর আর পি এগ্রো লিঃ এর আমদানিকৃত ১৪ ওয়াগান ভূট্টার পণ্য চালানটি খালাসের উদ্দেশ্যে ইশ্বরদী স্টেশনে যাবেঅ
এবিষে ফারুক ষ্টোরের স্বাত্তধিকারী ইমরান হোসেনর নিকট গম উদ্ধারের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার দোকানে গম উদ্ধারের কোন ঘটনা ঘটেনি।ট্রেনের নিরাপত্তা করীরা এসে দেখে চলে গেছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button