sliderআন্তর্জাতিক সংবাদশিরোনাম

বিক্ষোভ দমাতে ইন্টারনেট বন্ধ করে দিয়েছে ইরান

পেট্রোলের দাম বৃদ্ধির ফলে ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভ দমাতে দেশব্যাপী ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করেছে ইরান। বিক্ষোভকারীদের পরস্পরের মধ্যে যোগাযোগ বন্ধ করতে দেশটির প্রায় অঞ্চলে ইন্টারনেট বন্ধ রয়েছে। সরকারবিরোধী বিক্ষোভ থামাতে রোববার থেকে ইরান এ পদক্ষেপ নিয়েছে বলে রয়টার্স জানিয়েছে।
শুক্র এবং শনিবার থেকে ইরানে ব্যাপক নেট বিভ্রাট ঘটেছে বলে ইন্টারনেট সংযোগ তদারককারীর আন্তর্জাতিক সংস্থা নেটব্লকস তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে। এছাড়া দেশটিতে ব্যাপকভাবে ব্যবহার হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ এবং ইনস্টাগ্রামও বন্ধ হয়ে গেছে।
সাধারণ ব্যবহারকারীদের মোবাইলে ইন্টারনেট সংযোগ পাওয়ার চেষ্টা করলেই রেকর্ড করা একটি বার্তা আসছে। তাতে লেখা রয়েছে, জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত মোতাবেক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে। ইরানে নেট বিচ্ছিন্ন থাকার এটিই সবচেয়ে বড় ঘটনা বলে জানিয়েছে ইন্টারনেট ফার্ম ওরাকল।
এদিকে জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে শুরু হওয়া বিক্ষোভে তিনদিনে নিহতের সংখ্যা ১২ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছে শতাধিক মানুষ। ১ হাজারের বেশি মানুষকে আটক করা হয়েছে।
শুক্রবার ইরান সরকার পেট্রোলের মূল্য ৫০ শতাংশ বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ সিদ্ধান্তের পর দেশটিতে বিক্ষোভ শুরু হয়। একপর্যায়ে তা সরকারবিরোধী আন্দোলনে রূপ নেয়।
যদিও ইরানজুড়ে ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভের জন্য বিদেশি শত্রুদের ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে দাবি করেছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি।
রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনকে তিনি বলেন, কিছু লোক নিঃসন্দেহে এ সিদ্ধান্তে চিন্তিত। তবে নাশকতা ও অগ্নিসংযোগ আমাদের লোকজন নয়, গুণ্ডারা করেছে। পাল্টা বিপ্লব, নাশকতা ও নিরাপত্তা লঙ্ঘনকে ইরানের শত্রুরা সবসময় সমর্থন করেছে এবং এখনও অব্যাহত রেখেছে।
খামেনি বলেন, দুর্ভাগ্যক্রমে কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছে, বেশ কিছু লোক প্রাণ হারায় এবং কয়েকটি কেন্দ্র ধ্বংস হয়ে যায়।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button