নিখোঁজের দুইদিন পর ঢাবি’র সাবেক অধ্যাপকের মরদেহ উদ্ধার

পতাকা ডেস্ক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক সাইদা খালেকের (মোছা. সাইদা গাফফার) মরদেহ গাজীপুর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।
গত দুদিন আগে গাজীপুরের কাশিমপুর থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেন নিহতের মেয়ে সাহিদা আফরিন। পুলিশ জানায়, নিহত প্রফেসর সাহিদা গাফফার কাশিমপুরের পাইনশাইল এলাকায় একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন। একই এলাকায় অবস্থিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসন প্রকল্পের নিজের একটি ফ্লাটের নির্মাণ কাজ করাচ্ছিলেন তিনি। তার প্লটের আনারুল নামের রাজমিস্ত্রি কাজ করেন। নিহত প্রফেসর সাহিদা গফফার এর হাত থেকে টাকা ছিনিয়ে নিতে চেয়েছিল রাজ মিস্ত্রি।
তখন তিনি ডাক চিৎকার দিলে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে এবং পরে টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় ওই রাজমিস্ত্রী।
কাশিমপুর থানার উপ পরিদর্শক দীপঙ্কর রায় জানান, অভিযান চালিয়ে হত্যাকাণ্ডের মূল আসামী আনারুলকে গাইবান্ধা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত আনারুল গাইবান্ধা জেলা সাদুল্লাপুর থানার বুজর্গ জামালপুর গ্রামের আনসার আলীর ছেলে। নিহত সাহিদা গাফফার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি বিজ্ঞান বিভাগের সাবেক প্রফেসর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রফেসর কিবরিয়া উল খালেক এর স্ত্রী।
আজ শুক্রবার সকালে গাজীপুরের পানিশাইল এলাকায় তার ভাড়া বাসার অদূরে এ মরদেহ পাওয়া যায় বলে সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে পুলিশ।
কাশিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবে খোদা সংবাদমাধ্যমকে বলেন, শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সাঈদা খালেকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তিনি কাশিমপুরের পানিশাইলের যে বাসায় ভাড়া থেকে নিজের প্রজেক্ট দেখাশোনা করছিলেন, সেখান থেকে আনুমানিক ২০০ গজ দূরে মরদেহটি পাওয়া গেছে।
তিনি বলেন, গ্রেফতার ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, তাকে হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

Check Also

নবাবগঞ্জে শীতার্তদের পাশে প্রবাসী কল্যাণ ফান্ড

নবাবগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি : ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলায় দুস্থ, অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে কম্বল বিতরণ …