sliderখেলা

বাংলাদেশের ইতিহাস গড়া জয়

স্পোর্টস ডেস্ক : মাত্র ১১১ রানে প্রথম ইনিংস গুটিয়ে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ঢাকায় সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে ফলোঅনে পড়া সফরকারী দলটি দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দলীয় মাত্র ২৯ রানে চার উইকেট হারিয়ে বসে। এক শিমরন হেটমায়ার ছাড়া আর কেউই দৃঢ়তা দেখাতে পারেনি। তাই অনুমিতভাবেই অতিথি দলটি হেরেছে, ইনিংস ও ১৮৪ রানে।
এইজয়ে নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে সবচেয়ে বড় জয়ের নজির গড়ল বাংলাদেশ। প্রথমবার ইনিংস ব্যবধানে জয় পেয়েছে লাল-সবুজের দল।
তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে আরেকটি হোয়াইটওয়াশের লজ্জা দিল বাংলাদেশ। এর আগে ২০০৯ সালে ক্যারিবীয় দলটিকে তাদেরই মাটিতে ২-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করেছিলেন মাশরাফি-সাকিবরা। অবশ্য গত জুলাইতে তাদেরই মাটিতে ২-০ ব্যবধানে হেরিছিল সাকিবরা। এবার তারই প্রতিশোধ নিয়েছে।
রোববার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচের তৃতীয় দিনে বাংলাদেশি স্পিনারদের সামনে কোনোরকম দাঁড়াতেই পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটসম্যানরা। বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে গড়ে ৫০৮ রানের বিশাল সংগ্রহ। জবাবে সফরকারী দলটির প্রথম ইনিংস মাত্র ১১১ রানে গুটিয়ে যায়। আর দ্বিতীয় ইনিংসে করে ২১৩ রান। তাই আরেকটি বড় ব্যবধানে হারের লজ্জা পায় তারা।
তরুণ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজের ঘূর্ণি-জাদুতেই দুই ইনিংসে ব্যাটিং বিপর্যয় হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের। প্রথম ইনিংসে ১৬ ওভারে ৫৮ রান দিয়ে সাত উইকেট তুলে নেন। আর দ্বিতীয় ইনিংসে পান পাঁচ উইকেট।
এর আগে ২০১৬ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এক টেস্টে ১২ উইকেট পেয়েছিলেন মিরাজ। এ নিয়ে দ্বিতীয়বার ১২ উইকেট পেলেন তিনি।
এ ছাড়া সাকিব প্রথম ইনিংসে তিনটি এবং দ্বিতীয় ইনিংসে একটি উইকেট পান। আর তাইজুল প্রথম ইনিংসে কোনো উইকেট না পেলেও দ্বিতীয় ইনিংসে তিন উইকেট নিয়ে দলের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন।
দ্বিতীয় ইনিংসে শিমরন হেটমায়ার ৯৩ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলে দলের হার এড়াতে পারেননি, শুধু ব্যবধান কমিয়েছেন মাত্র।
ম্যাচের ইনিংসে বাংলাদেশের বড় সংগ্রহ গড়তে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন মাহমুদউল্লাহ। ২৪২ বল খেলে ১৩৬ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলেন তিনি।
তরুণ ওপেনার সাদমান ইসলাম খেলেন ৭৬ রানের চমৎকার একটি ইনিংস, যাতে তিনি বল খরচ করেছেন ১৯৯টি। আর মুমিনুল ও মিঠুন ২৯ রান করে নেন। ওপেনার সৌম্য সরকার করেন ১৯ রান।
পরে পঞ্চম উইকেট জুটিতে সাকিব-মুশফিক কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। কিন্তু মুশফিক দ্রুত ফিরে গেলে (১৪) কিছুটা চাপে পড়ে যায় দল। তবে সেই চাপ সামলে দলকে এগিয়ে নেন সাকিব ও মাহমুদউল্লাহ জুটি। দুজনে ১১১ রানের জুটি গড়েন। তবে সাকিব ১৩৯ বলে ৮০ রান করে আউট হন। এক টেস্ট পর দলে ফিরে আট নম্বরে ব্যাট করতে নেমে লিটন দাস ৫৪ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলেন।
এই ম্যাচে ফলোঅনে পড়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে এই প্রথম কোনো দলকে ফলোঅনে পাঠাতে পেরেছে বাংলাদেশ। এনটিভি।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button