sliderস্থানীয়

পরিবেশবিদ মতিন সৈকত এগ্রিকালচারাল ইম্পর্ট্যান্ট পারসন এআইপি সন্মাননা পেলেন

দাউদকান্দি (কুমিল্লা) সংবাদদাতা: ৭ জুলাই রবিবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে কৃষি ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্তি হিসেবে এগ্রিকালচারাল ইম্পর্ট্যান্ট পারসন (এআইপি) সন্মাননা পেয়েছেন দাউদকান্দি উপজেলার ইলিয়টগঞ্জ উত্তর ইউনিয়ন আদমপুর গ্রামের কৃতি সন্তান অধ্যাপক মতিন সৈকত। এসময় পরিবেশবিদ অধ্যাপক মতিন সৈকতের হাতে এআইপি কার্ড,
প্রশংসাপত্র, ক্রেষ্ট তুলে দেন প্রধান অতিথি কৃষি মন্ত্রী ড. আব্দুস শহীদ এমপি,বিশেষ অতিথি প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী এমপি, কৃষি সচিব ওয়াহিদা আক্তার। ২০১৯ সালের নীতিমালা অনুযায়ী এআইপি গণ সিআইপিদের মতো সুযোগ-সুবিধা পাবেন। এর মধ্যে রয়েছে- মন্ত্রণালয় থেকে একটি প্রশংসাপত্র, বাংলাদেশ সচিবালয়ে প্রবেশের জন্য প্রবেশ পাশ, বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠানে নাগরিক সংবর্ধনায় আমন্ত্রণ, বিমান,রেল, সড়ক ও জলপথে ভ্রমণকালীন সরকার পরিচালিত গণপরিবহনে আসন সংরক্ষণ অগ্রাধিকার, ব্যবসা/দাফতরিক কাজে বিদেশে ভ্রমণের জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভিসা প্রাপ্তির নিমিত্ত সংশ্লিষ্ট দূতাবাসকে উদ্দেশ্য করে খবঃঃবৎ ড়ভ ওহঃৎড়ফঁপঃরড়হ ইস্যু করবে, নিজের ও পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসার জন্য সরকারি হাসপাতালের কেবিন সুবিধা প্রাপ্তিতে অগ্রাধিকার এবং বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ ব্যবহার সুবিধা পাবেন। ২০২১ সালের এগ্রিকালচারাল ইম্পর্ট্যান্ট পারসন এআইপি খেতাবে ভূষিত হছেন কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার আদমপুর গ্রামের রাষ্ট্রীয় পুরস্কার প্রাপ্ত কৃষি পরিবেশ সমাজ উন্নয়ন সংগঠক, অধ্যাপক এম এ মতিন (মতিন সৈকত)। তিনি প্রায় চার দশক ধরে কৃষি পরিবেশ সমাজ উন্নয়নে বৈপ্লবিক অবদান রাখছেন। কৃষি উদ্ভাবন জাত/প্রযুক্তি বিভাগে মতিন সৈকত-কে এআইপি সন্মানা দেওয়া হয়। মতিন সৈকত একজন বহুমুখী সৃজনশীল উদ্ভাবক-উদ্যোক্তা।
ছবির ক্যাপশনঃ দাউদকান্দির কৃতি সন্তান মতিন সৈকতকে ক্রেষ্ট প্রদান করেন কৃষি মন্ত্রী মহোদয়

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button