sliderস্থানীয়

নিয়ামতপুরে দুই হাতির আতঙ্ক রাস্তায় চাঁদাবাজি

জনি আহমেদ, নিয়ামতপুর (নওগাঁ)প্রতিনিধি : নওগাঁর নিয়ামতপুরে গাবতলী থেকে ছাতড়া আঞ্চলিক সড়কের পাশ্ববর্তী রাস্তায় ও বাজারে প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দুই হাতির আতঙ্ক রাস্তায় চাঁদাবাজি করা হচ্ছে। হাতির ভয় দেখিয়ে জিম্মি করে অভিনব কৌশলে এই চাঁদাবাজি চলছে। দোকানি টাকা গুজে না দেওয়া পর্যন্ত হাতি শুঁড় এগিয়ে দিয়ে ঠাঁই দাঁড়িয়ে থাকে। এছাড়া রাস্তায় গাড়ি আটকে টাকা নেওয়ার ঘটনাও নেহায়েৎ কম নয়। ফলে স্থানীয় অধিবাসী, চালক ও ব্যবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেলে পাইকড়া বাজারসহ বিভিন্ন রাস্থায় হাতি দিয়ে টাকা তুলছেন মাহুত। সর্বনিম্ন ১০ টাকা থেকে শুরু করে দোকানের ধরণ অনুযায়ী ১০০-১৫০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা নেওয়া হচ্ছে। পাইকড়া বাজারের একটি মুদি দোকানে হঠাৎ বিশালদেহী হাতিটি মাহুতের ইশারায় শুঁড় এগিয়ে দেয় দোকানে। ভয়ে দোকানদার ৫০ টাকা হাতিটির শুঁড়ে গুজে দেন।

হাতি দিয়ে চাঁদাবাজির বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলার আমইল গ্রামের বাসিন্দা আলমগীর মন্ডল বলেন, দোকান থেকে চাঁদা ওঠানো শেষ হলে হাতিগুলো রাস্তায় নামে। শুধু দোকানেই তারা চাঁদাবাজি করেন না। চলন্ত গাড়ি থামিয়ে দিয়েও চাঁদা আদায় করেন তারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ছাতড়া বাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন, টাকা না দিলে হাতিটি যাবে না। এছাড়া অনেক সময় দোকান ভাঙচুরও করে। এজন্য ঝামেলা হওয়ার আগেই টাকা দিয়ে বিদায় করা লাগে।

চাঁদাবাজির বিষয়টি অস্বীকার করে হাতির মাহুত কিশোর মানিক মিয়া বলেন, হাতির ভরণপোষণের জন্য সবাই খুশি হয়ে কিছু টাকা দেয়। তবে আমরা কারও ওপর কোনো জোরাজুরি করি না।

এ বিষয়ে নিয়ামতপুর থানার ওসি মাইদুল ইসলাম বলেন, হাতি দিয়ে টাকা তোলার বিষয়ে এখনও কেউ আমাদের কিছু জানায়নি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button