sliderস্থানীয়

ধামরাইয়ে ফসলি জমির মাটি কাটার প্রতিবাদে মানববন্ধন

ধামরাই (ঢাকা)প্রতিনিধি : ঢাকার ধামরাইয়ে ফসলি জমির মাটি কাটার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে স্থানীয় কৃষকরা।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) ধামরাই উপজেলা পরিষদ চত্বরের সামনে আমতা ইউনিয়নের বড় নারায়নপুর এলাকার স্থানীয়দের উদ্যোগে এ মানববন্ধন হয়।

এতে অর্ধশতাধিক কৃষক অংশ নেন। এতে বক্তব্য দেন কৃষক সোলায়মান, দোয়াত আলী, ইয়াসিন, কামরুল হাসান, আলম ও খলিলুর রহমান প্রমুখ।

কৃষকদের অভিযোগ, স্থানীয় একটি চক্র ফসলি জমি থেকে রাতের আঁধারে মাটি কেটে ইটভাটায় বিক্রি করে দিচ্ছে। এ বিষয়ে কৃষকরা ধামরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার ভূমি বরাবর অভিযোগপত্র দিয়েছেন।

মানববন্ধনে কৃষক সোলায়মান বলেন, এই ইউনিয়নের গরিব কৃষকেরা ধান, মরিচ, সরিষা, পাট ও শাকসবজি উৎপাদন করছে। কিন্তু স্থানীয় একটি চক্র এসব ফসলি জমি থেকে রাতের আঁধারে মাটি কেটে ইটভাটায় বিক্রি করে দিচ্ছে। স্থানীয় কয়েক জন অসাধু ব্যক্তি নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য আমাদের ফসলি জমির মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে। আমরা এ ধরনের কাজের প্রতিবাদ জানাই।

মানববন্ধন আরেকজন কৃষক ইয়াসিন বলেন, আমরা কৃষিকাজ করে খাই। আমাদের আর কোনো উপায় নেই। আমাদের ফসলি জমি নষ্ট হলে পথে বসতে হবে। সরকারের কাছে আমরা মাটি কাটা বন্ধের দাবি জানাই।

গ্রামের বাসিন্দা দোয়াত আলী বলেন, তিন ফসলি জমি থেকে জোর করে মাটি কেটে ইটভাটায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এতে দিন দিন ফসলি জমি কমে যাচ্ছে। জমির মধ্যখানে ১৫ থেকে ১৬ ফুট গভীর করে মাটি কাটার ফলে পাশের জমি গুলোও ভেঙে যাচ্ছে।
ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামবাসীদের অভিযোগ, শুধু রাতে না, দিন-দুপুরেও কৃষি জমি থেকে জোরপূর্বক মাটি কেটে নিচ্ছে এলাকার চিহ্নিত ভূমিদস্যু মাটি খেকোরা।

ধামরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ বলেন, কৃষিজমি রক্ষার্থে আমরা সবসময়ই কাজ করে যাচ্ছি। এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আমতা ইউপি চেয়ারম্যান আরিফ হোসেন বলেন, জমি থেকে জোরপূর্বক মাটি কেটে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি,করলে ব্যবস্থা নিব।

বাংলাদেশ নদী বাঁচাও আন্দোলনের ধামরাই উপজেলা শাখার সভাপতি কৃষক বন্ধু এস এম নজরুল ইসলাম মানববন্ধনে উপস্থিত থাকার সময়ে বলেন, যেভাবে কুচক্রী মাটি ব্যবসায়ীরা কৃষি জমির কাটায় যেভাবে বেপরোয়া হয়ে উঠছে তাতে কৃষি জমি দিন দিন কমে যাচ্ছে। এছাড়া নদী পাড়ে ঘর বাড়ি ভেঙে যাওয়া আশঙ্কা রয়েছে। কৃষি জমিগুলো মাটি কাটার ফলে বড় বড় গর্ত পরিণত হয়ে যাচ্ছে এতে কৃষি জমিতে চাষ করতে অন্তরায় সৃষ্টি হচ্ছে। তাই কৃষি জমি রক্ষা করতে সচেতন মহলকে এগিয়ে আসতে হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button