sliderস্থানীয়

তাহিরপুর সীমান্ত চোরাচালানের “নিরাপদ আশ্রয়স্থল” ভারতীয় চিনি জব্দ, চোরাচালানীরা অধরা

আমির হোসেন, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা সীমান্ত দিয়ে বিনা শুল্কে ভারত থেকে অবৈধভাবে চোরাই পথে আনা চিনির চালান জব্দ করেছে এলাকাবাসী। শুক্রবার(৩১ মে) সকাল ১০টার দিকে উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের সুলেমানপুর বাজার সংলগ্ন পাটলাই নদী থেকে আটক করা হয়।

খোঁজ নিয়ে গেছে,দীর্ঘ দিন ধরে সীমান্তের চিহ্নিত চোরাচালানীরা ভারত থেকে অবৈধ পথে বিনা শুল্কে কয়লা,বিভিন্ন ব্যান্ডের মদ,গাজা,ইয়াবা,কসমেটি ও ভারতীয় চিনিসহ বিভিন্ন পণ্য এনে উপজেলায় ও পাশ্ববর্তী মধ্যনগর উপজেলা দিয়ে পাচার করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ সকালে তাহিরপুর সীমান্ত দিয়ে চোরাচালানের মধ্যে আনা ভারতীয় চিনির চালান বোঝাই একটি নৌকা উপজেলার পাটলাই নদী দিয়ে পাচার করার সময় স্থানীয় এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে ইঞ্জিন চালিত নৌকাসহ ১৮টি চিনির বস্তা(৫০) আটক করে। পরে পুলিশকে খবর দিলে তাহিরপুর থানার এসআই প্রাডন সিংহ ঘটনাস্থলে গিয়ে চিনিসহ নৌকা থানায় নিয়ে আসে।

প্রতক্ষদর্শী ও সীমান্ত এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা জানান,দীর্ঘদিন সীমান্তের চিহ্নিত চোরাচালানীরা একটি সিন্ডিকেট তৈরী করে উপজেলার বাগলী,লালঘাট,কলাগাও,চারাগাও,লাকমা,জঙ্গলবাড়ি,ট্যাকেরঘাট সীমান্ত এলাকা দিয়ে রাত বিরাতে হাজার হাজার বস্তা ভারতীয় কয়লা ও চিনিসহ বিভিন্ন ব্যান্ডের মদ,ইয়াবা,গাজা,ইয়াবা,কসমেটিকস ভারত থেকে চোরাচালানের মধ্যে এনে সীমান্তের কাছাকাছি বাড়ি ঘরে রাখা হয়। পরে সময় আর সুযোগ বুঝে নৌকা বোঝাই করে পাটলাই নদী পথে ও পিকআপ গাড়ি দিয়ে সড়ক পথে পাশ্ববর্তী মধ্যনগর উপজেলাসহ বিভিন্ন উপজেলার পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন শহরে পাচার করা হয়।

এর এদিকে ওই চোরাকারবারিদের আরেকটি গ্রুপ নিজেদেরকে পুলিশ-বিজিবি ও স্থানীয় কিছু সাংবাদিকের সোর্স পরিচয় দিয়ে তাদের নাম ভাঙ্গীয়ে চোরাই চিনির-কয়লার বস্তা প্রতি ও ভারতীয় বিভিন্ন চোরাই পণ্যের জন্য সাপ্তাহিক ও মাসিক চাদাঁ আদায় করে চোরাকারবারিদের কাছ থেকে।

ভারত থেকে অবৈধ পথে আসা ওইসব পণ্যের একটি অংশ তাহিরপুর উপজেলা সদর বাজারসহ উপজেলার সুলেমানপুর, লামাগাও, পন্ডুব,বালিজুরী,আনোয়ারপুরসহ বিভিন্ন বাজারে পাচার করা হয়। ফলে মাদক ও ভারতীয় চিনির সয়লাব হয়েগেছে উপজেলার সর্বত্রই। শুধু তাই নয়। ভারত থেকে চোরাচালানের মধ্যে ওইসব পণ্যে আনতে গিয়ে প্রতিনিয়তই ঘটছে বাংলাদেশীদের মৃত্যু। ওইসব চোরাচালান ও চোরাচালান করতে গিয়ে বাংলাদেশীদের মৃত্যু নিয়ে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকসহ আঞ্চলিক ও স্থানীয় দৈনিক পত্রিকায় একাধিক নিউজ প্রকাশিত হলেও স্থানীয় প্রশাসন দেখেও না দেখার ভানকরে রহস্যজনক কারণে রয়েছে নিরব ভূমিকায়।

এ ব্যপারে তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি নাজিম উদ্দীন বলেন, মালিকবিহীন নৌকাসহ ভারতীয় ১৮টি চিনির বস্তা জব্দ করা হয়েছে। এঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এর সাথে জড়িতদের বিষয়েও খোঁজ নেয়া হবে। কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button