sliderস্থানীয়

তাহিরপুরে জিংক সমৃদ্ধ বঙ্গবন্ধু-১০০ ধানে কৃষকের বাজিমাৎ

আমির হোসেন,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : তাহিরপুরে বেসরকারি সংস্থা ওয়ার্ল্ড ভিশনের  সার্বিক সহযোগিতায় চাষ হয়েছে জিংক সমৃদ্ধ বঙ্গবন্ধু-১০০ ধান, অধিক ফলন হওয়ায় খুশি কৃষক। তাহিরপুর সদর ইউনিয়নের কৃষক বিদ্যুৎ চক্রবর্তী   ৩৩ শতক জমিতে চাষ করেছেন বঙ্গবন্ধু ব্রিধান-১০০,এর থেকে ধান এসেছে ২৪ মন।

কৃষক বিদ্যুৎ চক্রবর্তী বলেন, অন্য বছরের তুলনায় এই বার আমার ৩৩ শতক জমির মাঝে ধান অনেক বেশি হইছে, অন্য জাতের থাইকা এ জাতের ধানের উৎপাদন খরচ অনেক কম, মাঝারী চিকন থাকার কারণে  বাজারে এ ধানের চালের চাহিদা রয়েছে,গত বছর আমার এই জমির মাঝে অন্য জাতের ধান লাগানোর কারনে ধান হইছে ১২ মন, এই বার জিংক সমৃদ্ধ বঙ্গবন্ধু- ১০০ লাগানোর কারনে আমার জমিতে ধান হইছে ২৪ মন। পুষ্টির চাহিদা পূরণে জিংক সমৃদ্ধ ধান ভূমিকা রাখে। এই ধান চাষে আমারে উৎসাহিত ও সহযোগিতা করছে ওয়ার্ল্ড ভিশন সংস্থা।

ওয়ার্ল্ড ভিশন তাহিরপুর এপি ম্যানেজার বিভুধান বিশ্বাস বলেন,তাহিরপুর উপজেলার,তাহিরপুর সদর ইউনিয়ন, বালিজুরি ইউনিয়ন, বাদাঘাট ইউনিয়ন ও উত্তর বড়দল ইউনিয়নের ৪৮ জন কৃষকের মধ্যে আমরা পরিক্ষা মূলক ভাবে  জিংক সমৃদ্ধ ধান দিয়েছি , কৃষকরা জিংক সমৃদ্ধ ব্রি ধান ৭৪, ব্রি ধান ৮৪ এবং ব্রি ধান ১০০ আবাদ করেছেন ৮টি প্রদর্শনী প্লট করেছেন এবং আমরা সফলও হয়েছে আগামীতে জিংক সমৃদ্ধ ধানের বীজ আমরা অনেক কৃষকের মাঝে দিয়ে থাকবো, যেন মানুষের পুষ্টির চাহিদা পূরণ হয় জমিতে  ফলন ভালো হয়।

ওয়ার্ল্ড ভিশন সিলেটের লাইভলিহুড টেকনিক্যাল প্রোগ্রাম স্পেশালিষ্ট রুহুল আমিন জানান, দেশে অধিকাংশ শিশু ও কিশোরী জিংকের অভাবে অপুষ্টিজনিত সমস্যায় ভোগে। বিশেষ করে শিশুদের বয়োসন্ধিকালে শরীরিক বৃদ্ধি ও বুদ্ধিমত্তা বৃদ্ধির জন্য জিংকের চাহিদা গুরুত্বপূর্ণ। যেহেতু আমাদের তিনবেলা ভাত খেতে হয়, সেহেতু ভাতের মধ্যে এর চাহিদাটা বিদ্যমান থাকলে অভাবটা সহজেই পূরণ হবে। আর শিশুদের কথা চিন্তা করেই জিংক সমৃদ্ধ ধান যেনো কৃষকরা সব সময় করে তার জন্য ওয়ার্ল্ড ভিশন সব ধরনের সার্বিক সহযোগিতা করে আসছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাসান উদ-দৌলা বলেন,তাহিরপুর  ওয়ার্ল্ড ভিশনের মাধ্যমে কৃষকদের মাঝে জিংক সমৃদ্ধ ধান বীজ সরবরাহ করেছেন। এর ফলে কৃষক তার জমিতে থেকে পর্যাপ্ত পরিমাণ জিংক ধান উৎপাদন করতে পেরেছেন। এই ধান আবাদ করে প্রান্তিক কৃষকদের পরিবার যেমন উপকৃত হয়েছে তেমনি আগামী প্রজন্ম বেড়ে উঠবে সুন্দর ও সুস্থ ভাবে। এ ধান আবাদের জন্য উপজেলা প্রশাসন থেকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণসহ সব সময় কৃষকদের সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করা হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button