sliderস্থানীয়

ঝালকাঠিতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদায়নে দুর্নীতির অভিযোগ

ঝালকাঠি প্রতিনিধি: ঝালকাঠিতে নলছিটিতে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদায়নে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। জেলার নলছিটি উপজেলার পৌর এলাকার সারদল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক চাহিদা গোপন রেখে তালিকা প্রকাশ করলেও বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দাকে সুযোগ বুঝে পদায়ন দেয়ায় এ অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে সংশ্লিষ্টদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

তথ্যানুসন্ধানে জানাগেছে, ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলায় ১৬৭টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩৭৬টি অনুমোদিত পদে প্রধান শিক্ষক ৬০জন এবং সহকারী শিক্ষক ৩১৬ জন। এর মধ্যে প্রধান শিক্ষকের ১৭টি এবং সহকারী শিক্ষকের ২৭টি পদ শুন্য রয়েছে। গত রোববার (৫মে) প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদে নবনিয়োগকৃতদের পদায়ন দেয়া হয়েছে।

নলছিটি পৌর এলাকার মধ্যে সারদল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সংকট থাকলেও শুন্যপদের চাহিদায় তা দেখানো হয়নি। নলছিটি উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে গোপনে সংগ্রহ করা শুন্য পদের তালিকায় ১৪৪ নং চরকাঠিপাড়া রেজিস্টার প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ১৪৭ নং পূর্ব রানাপাশা রেজি. প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষকের চাহিদা দেয়া হয়েছে। কিন্তু ১৪৬ নং সারদল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য সহকারী শিক্ষক বা প্রধান শিক্ষকসহ কোন পদেরই চাহিদা দেয়া হয়নি। কিন্তু পদায়নের সময় ওই বিদ্যালয়ে ৭০১১৮৮২ রোল নম্বরধারী দপদপিয়া এলাকার মো. আব্দুস ছত্তার খান ও জীবননেসা দম্পতির কন্য কেয়া আক্তারের পদায়ন করা হয়। শিক্ষকের পদ শুন্য না থাকার পরেও কিভাবে পদায়ন হয়? বিষয়টি গোপন রাখায় সহকারী শিক্ষক পদে নবনিয়োগকৃতদের পছন্দের পদায়নে ওই স্কুলের চাহিদা কেউ দিতে পারেনি। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে চাকুরীজীবী একজনের বোনকে বাড়ির পাশের ওই বিদ্যালয়ে কৌশলে পদায়নে এমন ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট এলাকার লোকজন।

ঝালকাঠি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার অশোক কুমার সমদ্দার জানান, উপজেলা থেকে যেভাবে শিক্ষক চাহিদা আসছে সেভাবেই পদায়ন হয়েছে। কিছুদিন আগে সহকারী শিক্ষকদের পদায়ন সম্পন্ন হয়েছে। অনেকেই চাহিদামতো স্কুলে যাওয়ায় দুর্গম এলাকার স্কুলগুলোতে ফাকা রয়েছে। এখন সেখানে অনেকেই যেতে চাচ্ছেন না। অনেক কিছুই চিন্তা ও হিসেব নিকাশ করে ভারসাম্য রেখেই পদায়ন দেয়া হয়েছে। চাহিদা না থাকায় কিভাবে সেখানে পদায়ন? প্রশ্ন করলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button