sliderআন্তর্জাতিক সংবাদশিরোনাম

চীনের সাথে সংঘর্ষ : ৭৬ ভারতীয় সেনা আহত

সোমবার সন্ধ্যায় লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চীনা সেনাবাহিনীর সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় ২০ জন ভারতীয় সেনা নিহতের পাশাপাশি আহতও হয়েছেন আরো ৭৬ জন। তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বলে সেনাসূত্রে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।
খবরে প্রকাশ, ওই আহত জওয়ানদের শারীরিক অবস্থা অনেকটাই স্থিতিশীল এখন। সীমান্ত সংঘর্ষের সময় আহত সেনাদের মধ্যে ১৮ জন লে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন, বাকি ৫৬ জনের চিকিৎসা চলছে অন্যান্য হাসপাতালে। তবে তারা যেভাবে দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছেন তাতে আশা করা হচ্ছে যে, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কাজে যোগ দিতে পারবেন তারা, জানিয়েছেন এক সেনা কর্মকর্তা।
কিছুদিন ধরেই ভারত-চীন সীমান্তে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা দানা বাঁধছিল। সীমান্তের সেই উত্তপ্ত পরিস্থিতি প্রশমিত করতেই বৈঠক করে ভারত ও চীন। ৬ জুনের সামরিক স্তরের সেই বৈঠকের পর চীন সেনাবাহিনীর অধিগৃহীত জমি থেকে ধীরে ধীরে সরে যাওয়ার কথা ছিল। সেই কাজ খতিয়ে দেখতে নিহত কর্নেল বিএল সন্তোষ বাবুর নেতৃত্বে এলাকা পরিদর্শনে বের হয় ভারতীয় বাহিনী। তার সাথে ছিল প্রায় ১০০ জন জওয়ান। তারা ১৫ হাজার ফুট উচ্চতায় গালোয়ান উপত্যকা এলাকা গিয়ে দেখে সেখানে তাঁবুতে ঘাঁটি গেড়ে বসেছে লালফৌজ। তাদের বের করে সেই তাঁবু ভাঙতে শুরু করে ভারতীয় বাহিনী। আগুন ধরিয়ে দেয়া হয় কিছু তাঁবুতে। এতেই বিপদ বুঝে কাঠের তক্তা, লোহার রড, কাটা তার জড়ানো বাটাম-সহ আরো বাহিনী জড়ো হয় গালোয়ান এলাকায়। শুরু হয় দু’পক্ষের হাতাহাতি ও সংঘর্ষ।
এদিকে, সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, ক্ষতি এড়াতে পারেনি চীনও। ওই সংঘর্ষে সেদেশে হতাহত কমপক্ষে ৪৫ জন জওয়ান। যদিও চীনের সেনা সূত্র থেকে এব্যাপারে কোনো নিশ্চিত বিবৃতি মেলেনি।
গোটা ঘটনার জন্যে চীন ভারতীয় সেনাদের অসহিষ্ণু আচরণকে কাঠগড়ায় তুললেও ভারতের পক্ষ থেকে থেকে এই সংঘর্ষের জন্যে চীনকেই দায়ী করা হয়েছে। ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, ‘সীমান্ত পরিস্থিতি নিয়ে যথেষ্ট দায়িত্বশীল আচরণই করে এসেছে ভারত ৷ ওই এলাকায় যে কার্যকলাপ করা হয়েছে, তার সবটাই ভারতীয় এলাকার মধ্যে করা হয়েছে। চীনের থেকেও আমরা একইরকম ব্যবহারের আশা রাখি। ভারত সীমান্তে শান্তি বজায় রাখা এবং যেকোনো সমস্যা আলোচনার মাধ্যমে সমাধানে বিশ্বাসী। তবে একই সাথে ভারতের সার্বভৌমত্ব এবং অখণ্ডতা বজায় রাখার বিষয়টিও নিশ্চিত করতে হবে।’
চীনা সেনারা ‘পূর্ব পরিকল্পিতভাবেই পদক্ষেপ’ নিয়েই সোমবার গালওয়ান উপত্যকায় ওই সংঘর্ষের পরিস্থিতি তৈরি করে। যার ফলে ২০ জন ভারতীয় সেনা মারা যায়। বুধবার কেন্দ্রীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইয়িকে ফোন করে একথাই বলেন।
সূত্র : এনডিটিভি

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button