sliderআন্তর্জাতিক সংবাদশিরোনাম

কানাডায় বাড়ি কিনতে পারবেন না বিদেশিরা

বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য কানাডা তাদের দরজা বন্ধ করে দিয়েছে। কারণ একজন বিনিয়োগকারী হিসেবে কেউ আপাতত দেশটিতে বাড়ি কিনতে পারবেন না। সিএনএনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, কানাডায় ১ জানুয়ারি থেকে একটি নতুন আইন কার্যকর হয়েছে। আইনে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের দুই বছরের জন্য বাড়ি কেনা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। 

বিদেশী বিনিয়োগকারীদের জন্য কানাডা তাদের দরজা বন্ধ করে দিয়েছে।বিদেশী বিনিয়োগকারীদের জন্য কানাডা তাদের দরজা বন্ধ করে দিয়েছে।

মহামারীর পরে কানাডায় বাড়ির দাম আকাশচুম্বী হয়েছিল। তাই এই আইন পাশ করা হয়েছে। তাছাড়া দেশের অনেক রাজনীতিবিদ মনে করেন এর জন্য বিদেশিরা দায়ী। বিশেষ করে একজন বিনিয়োগকারী হিসেবে যিনি বাড়ি কিনছেন।

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর পার্টির ওয়েবসাইটে জানানো হয়, কানাডার বাড়িগুলো মুনাফাখোর, ধনী কর্পোরেশন ও বিদেশী বিনিয়োগকারীদের আকর্ষণ করছে। যা আকাশছোঁয়া দামের বাস্তব সমস্যার দিকে নিয়ে যায়। বলা হয়, বাড়িগুলো মানুষের জন্য, বিনিয়োগকারীদের জন্য নয়।

মহামারীর পরে কানাডায় বাড়ির দাম আকাশচুম্বী হয়েছিল।মহামারীর পরে কানাডায় বাড়ির দাম আকাশচুম্বী হয়েছিল।

২৩ জুনে কানাডার পার্লামেন্ট নন-কানাডিয়ান আইন দ্বারা আবাসিক সম্পত্তি ক্রয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা পাস করে। আইনটি ২০২৩ সালের ১ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হওয়ার কথা ছিল। আগামী দুই বছর এই আইন বলবৎ থাকবে। 

কানাডার কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান যদি আইন লঙ্ঘন করে বিদেশিদের আবাসন সম্পদ ক্রয়ে সহায়তা করে, তাহলে তাদের ভারী জরিমানা দিতে হবে। তবে অন্যদের ক্ষেত্রে এই আইন প্রযোজ্য হবে না।

২৩ জুনে কানাডার পার্লামেন্ট নন-কানাডিয়ান আইন দ্বারা আবাসিক সম্পত্তি ক্রয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা পাস করে।২৩ জুনে কানাডার পার্লামেন্ট নন-কানাডিয়ান আইন দ্বারা আবাসিক সম্পত্তি ক্রয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা পাস করে।

কানাডার রিয়েল স্টেট অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, ২০২০ ও ২০২১ সালে বাড়ির দাম আকাশচুম্বী ছিল। যদিও ২০২২ সালে দাম কিছুটা কমেছে। দাম সর্বোচ্চ মূল্য থেকে ১৩ শতাংশ কমেছে।

যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশের মতো ব্যাংক অব কানাডাও সুদের হার বাড়িয়েছে। ফলে দেশে বন্ধকের হারও বেড়েছে।
ইত্তেফাক

Related Articles

Back to top button