sliderস্থানীয়

কটিয়াদিতে অরক্ষিত পেট্রোলের দোকানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে একজন আহত ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

রতন ঘোষ, কটিয়াদী প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী সদর পুরাতন বাজারে ২১ জুন শুক্রবার বিকেল সাড়ে পাঁচ টায় অরক্ষিত এক পেট্রোল ও ডিজেলের দোকানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে একজন আহত সহ ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয়।

পার্শ্ববর্তী ব্যবসায়ী ও প্রত্যক্ষদর্শী তপন কুমার সাহা বলেন, ২১ জুন শুক্রবার বিকেল সাড়ে পাঁচ ঘটিকায়, জালালপুর ইউনিয়নের চর নোয়াকান্দি গ্রামের প্রয়াত আবুবক্কারের পাগল ছেলে সজীব মিয়া (২৫), কটিয়াদী পুরাতন বাজারের দেবনাথ রাধানাথ সাহার পদ্মা পেট্রোলিয়াম এজেন্সির দোকানের সম্মুখের রাস্তায় একটি মোটরসাইকেলে, কন্টেনার থেকে অকটেন ঢেলে দেওয়ার সময় পাগল সজীব তার হাত থেকে কন্টেইনার কেড়ে নিয়ে নিজ মাথায় ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। কেউ বুঝে ওঠার আগেই পাগলটি শরীরে আগুন নিয়েই পেট্রোলের দোকানে ঢুকে পড়ে। সেই সময় দোকানে রক্ষিত অন্যান্য কন্টেনার থেকে মেঝেতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়া পেট্রোলে দ্রুত আগুন ছড়িয়ে যায়। তখন দোকানের মালিক প্রিয় লাল রায় দোকানেই ছিলেন। এমন সময় পার্শ্ববর্তী দোকানের মালিক তপন কুমার সাহা একটি ছালার বস্তা নিয়ে দোকানে ঢুকে পাগল সজীবকে দোকান থেকে বের করে তার শরীরে ছালা দিয়ে চেপে ধরে আগুন নিভিয়ে ফেলে। এ সময় কে বা কারা পাগলকে কটিয়াদী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করে । এই অবস্থায় স্থানীয় লোকজন কটিয়াদীর ফায়ার সার্ভিসকে মোবাইলের মাধ্যমে ফোন করলেও ফোন রিসিভ না করার খবর পেয়ে, তৎক্ষণাৎ পার্শ্ববর্তী আবাসিক এলাকার সিনিয়র সাংবাদিক রতন ঘোষ ৯৯৯ নম্বরে কল করলে তারা ঘটনা শুনে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলে দশ মিনিটের ভিতরেই কটিয়াদী স্থানীয় ফায়ার ব্রিগেড ও অপরটি বাজিতপুর উপজেলার ফায়ার ব্রিগেডের এক ইউনিট সহ মোট দুইটি ইউনিট এক ঘন্টা পরিশ্রম করে, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে ঘটনার সাথে সাথেই ফায়ার ব্রিগেড ঘটনাস্থলে আসতে পারলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেকটাই কমে যেত।

এই ঘটনায় কটিয়াদী বাজার বনিক সমিতির সাবেক সদস্য বাচ্চু মিয়া, স্থানীয় আওয়ামী রাজনীতিবিদ ও ব্যবসায়ী রাফায়েত উল্লাহ এবং পুরাতন বাজারের বিশিষ্ট ওষুধ ব্যবসায়ী সাংবাদিক দীপক কুমার সাহা সহ আরো অন্যান্যরা জানান, এই ঘনবসতিপূর্ণ পুরাতন বাজারের মেইন রোডের উপর পেট্রোল, ডিজেল ও অকটেন বিক্রি করার কারণে প্রায় সময়ই যানজট লেগে থাকে তখন এলাকার মানুষ আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে থাকে। তারা স্থানীয় প্রশাসনের নিকট দাবি জানান যে, পরবর্তী সময় থেকে এই ধরনের ধার্য পদার্থের দোকান অন্যত্র খোলামেলা জায়গায় এজেন্সির নিয়ম অনুযায়ী ব্যবসা বাণিজ্য করা হোক । এভাবে খোলামেলা জায়গায় দাহ্য পদার্থের দোকান থাকলে যেকোনো সময় আজকের মত দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই অত্র এজেন্সি বাজার থেকে অন্যত্র সরানো হোক। মালিক প্রিয় লাল রায়ের ছেলে পার্থ রায় বলেন, ঘটনাটি অন্তর্গাত মূলক। তাদের ব্যবসাকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে কে বা কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে। তিনি আরো বলেন তাদের প্রায় এক কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। তবে জনসাধারণের ধারণা ৩০ থেকে ৪০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হতে পারে।

কটিয়াদী ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ইনচার্জ আতিকুল আলমকে দুর্ঘটনাস্থলে বিলম্বে আসার কথা জিজ্ঞাসা করলে, তিনি বলেন আমরা খবর পাওয়ার সাথে সাথেই কয়েক সেকেন্ডের ভিতরে ঘটনাস্থলে চলে এসে অগ্নি নির্বাপনের কাজে লেগে যাই। ক্ষতির পরিমাণ জিজ্ঞাসা করা হলে, তিনি বলেন এ ব্যাপারে তড়িঘড়ি না করে সময় নিয়ে বলতে হবে।

কটিয়াদীর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের (আরএমও) ডাক্তার অলি আহমেদ জানান, অগ্নিদগ্ধ পাগল সজীবের শরীরের ৬০/৭০ ভাগ অংশই পুড়ে গেছে। তাকে জরুরী ভিত্তিতে ঢাকার শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়েছে। কটিয়াদি মডেল থানার পরিদর্শক(তদন্ত) মোশারফ বলেন, আগুনে যে যুবক পুড়ে গেছে সে মানসিক ভারসাম্যহীন। তারা এই ঘটনা খতিয়ে দেখে আই আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন।

ঘটনার পরপর অগ্নিকান্ডের সংবাদ পেয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য এডভোকেট সোহরাব উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button